করোনা ভাইরাস লক্ষণ সহ গত ৯ দিনে মারা গেছেন ১৮ জন

বাংলাদেশ এ পর্যন্ত পাঁচজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে । কিন্তু ২২ থেকে ৩০ মার্চ গত নয় দিনে কমভিড -১৯ এর মতো লক্ষণগুলির সাথে কমপক্ষে ১৮ জন মারা গিয়েছিলেন। ২১ শে জানুয়ারী থেকে বাংলাদেশ মাত্র ১,৩৩৮ সন্দেহভাজন কোভিড -১৯ রোগীর পরীক্ষা করেছে ।

তারিখউপসর্গ জেলা
২৯ মার্চ কোভিড -১৯ উপসর্গের সাথে মারা গেছে বলে সন্দেহ করা এক মহিলাকে ২৯ শে মার্চ খিলগাঁও-তালতোলা কবরস্থানে দাফন করা হয়েছিল । নিহতের স্বামী বলেছিলেন যে তিনি জানেন না যে তাঁর স্ত্রী করোনভাইরাসতে আক্রান্ত ছিলেন কি না। 
তিনি গত কয়েকদিন ধরে জ্বর, সর্দি এবং শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন বলেও তিনি জানান
ঢাকা
২৮ মার্চ রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের করোনাভাইরাস ইউনিটে চিকিৎসাধীন এক যুবক ২৮ শে মার্চ শ্বাসকষ্টের কারণে মারা যান, ইনডিপেন্ডেন্ট জানিয়েছেঢাকা
২৫ মার্চ করোন ভাইরাসের লক্ষণ প্রকাশিত এক মহিলা মারা গিয়েছিলেন বলে সংবাদ সংস্থা ইউএনবি জানিয়েছে । হাসপাতালের উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস জানিয়েছেন, তারা এপিডেমিওলজি, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) এর সাথে যোগাযোগ করেছেন। 
নমুনা সংগ্রহ করার আগেই এই মহিলা মারা গিয়েছিলেন
রাজশাহী
২৪ মার্চ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (আরএমসিএইচ) করোনভাইরাসের লক্ষণ সহ আরও এক যুবক মারা গিয়েছিলেন। আল আমিন নারায়ণগঞ্জের একটি দোকানে সহকারী হিসাবে কাজ করতেন। 
শনিবার সকালে প্রচণ্ড ঠান্ডা, জ্বর এবং হাঁপানি নিয়ে তিনি দেশে ফিরেছিলেন।
রাজশাহী
২৩ মার্চ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনাভাইরাস জাতীয় লক্ষণ সহ এক রোগী মারা যান । তাঁর ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে থাইরয়েড সার্জারি করা হয়েছিল, যেখানে কোভিড -১৯ থেকে একজন রোগী মারা যান। খুলনা
২৯ মার্চ খুলনা মেডিকেল কলেজের এর আইসোলেশন ইউনিটে থাকা করোনাভাইরাস লক্ষণ সহ আরও একজন মারা গিয়েছিলেন । কেএমসিএইচ করোন ভাইরাস ইউনিটের চিকিত্সক শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস জানান, তিনি যক্ষা রোগে ভুগছিলেন।
তারা ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিওলজি, ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড রিসার্চকে (আইইডিসিআর) অবহিত করেছিল কিন্তু বলা হয়েছিল যে সুলতানের যক্ষ্মা আছে বলে তার দেহের নমুনা নেওয়ার প্রয়োজন নেই। কোনও পরীক্ষা ছাড়াই সুলতানের মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
খুলনা
২৯ মার্চ বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (এসবিএমসিএইচ) করোনাভাইরাসের লক্ষণযুক্ত দুই ব্যক্তি মারা গেছেন। 
নিহতরা হলেন- পটুয়াখালীর বাসিন্দা জাকির হোসেন এবং বরিশাল নগরীর পুরানপাড়া এলাকার মোঃ দুলালের স্ত্রী নিরু বেগম (৪৫)
বরিশাল
২৯ মার্চ শনিবার পটুয়াখালী শহরের কালিকাপুরে শ্বাসকষ্টের কারণে এক ব্যক্তি মারা গেছেন । নিহত রোগীর দেহ থেকে নমুনাগুলি সংগ্রহ করে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে কোভিড -১৯ এর পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী
২৫ মার্চ খাগড়াছড়িতে ২৫ শে মার্চ মাটিরাঙ্গা উপজেলায় ঠাণ্ডা, উচ্চ জ্বর ও শ্বাসকষ্টের কারণে চাটোগ্রাম শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডের এক ২০ বছর বয়সী শ্রমিক তার বাড়িতে মারা যান, উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ খায়রুল আলম বলেন, “আমাদের কাছে প্রতিরক্ষামূলক সরঞ্জাম না থাকায় আমরা তার রক্তের নমুনা সংগ্রহ করতে পারিনি।” খাগড়াছড়ি
২২ মার্চ সিলেটের শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিটে রাখা 61 বছর বয়সী এক মহিলা ২২ শে মার্চ মারা গেছেন । রবিবার সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক হিমাংশু লাল রায় মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, 10 দিন ধরে জ্বর, কাশি এবং শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগলে ওই মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল
সিলেট 
২৪ মার্চ সীতাকুণ্ডের শেখপাড়ায় জ্বর ও সর্দিতে আক্রান্ত এক মহিলা চ্যাটগ্রামের ২৪ শে মার্চ রাতে মারা যান, ইউএনবি জানিয়েছে । ৪৫ বছর বয়সী রেনু বেগম মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কুমিরার বাবার বাড়ি থেকে জ্বর ও সর্দি নিয়ে তার শ্বশুর বাড়িতে গিয়েছিলেন এবং সেখানে পৌঁছানোর দুই ঘন্টা পরে তিনি মারা যান চটগ্রাম
২৬ মার্চ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ২৩ বছর বয়সী এই ব্যক্তি হাসপাতালে মারা যান। 
“তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যেতে পারেন,  করোন ভাইরাস থেকে তাঁর মৃত্যু হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করতে তারা মৃত ব্যক্তির রক্তের নমুনা রাজধানীর ইপিডেমিওলজি, ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড রিসার্চকে (আইইডিসিআর) পাঠিয়েছেন
নোয়াখালি
২৯ মার্চ কোভিড -১৯ এর লক্ষণযুক্ত এক মহিলার মৃত্যুর পরে ২৯ শে মার্চ বিকেলে মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার বড়াইছড়া গ্রামকে স্থানীয় প্রশাসন লকডাউন করে দেয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিনা ইয়াসমিন জানান, করোন ভাইরাসের লক্ষণ দেখিয়ে ওই মহিলা মারা গিয়েছিলেন বলে তারা গ্রামটিকে তালাবদ্ধ করে দেন । মানিকগঞ্জ
২৪ মার্চ ২৪ শে মার্চ জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে করোন ভাইরাসের লক্ষণ সহ একজন রোগী মারা যান। 
একই দিন রাত বারোটায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন এবং দুই ঘন্টা পরে মারা যান, দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট জানিয়েছে
২৯ মার্চ লালমনিরহাটে আজিজুল ইসলাম নামে এক 49 বছর বয়সী ব্যক্তি শনিবার রাতে আদিতমারী উপজেলার নিজ বাড়িতে সিওভিড -১৯ এর লক্ষণে মারা গিয়েছিলেন বলে আশেপাশের সরকারী হাসপাতালে তাকে চিকিত্সা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছিল বলে ইউএনবি জানিয়েছেলালমনিরহাট
%%footer%%