নরডিক ভাইকিং সভ্যতায় – ” আল্লাহ ” লেখা প্রাচীন সিল্ক কাপড়ের সন্ধান

সুইডেনের ঊপ্সালা ইউনিভার্সিটির  এক গবেষণায় জাদুঘরে রক্ষিত   ১০ম শতাব্দীর একটি  ভাইকিং  সিল্ক কাপড়ের ব্যান্ডে র  প্রাচীন লেখা নিয়ে গবেষণা করতে গিয়া সেখানে আরবি অক্ষরে  ” আল্লাহ  “লেখা দেখতে পেয়ে অবাক হয়ে যান গবেষকরা ।মৃত ব্যাক্তির সৎকার এর পোশাকে ” আল্লাহ ” লেখা ইউরোপের মুসলিম ইতিহাস কে পরিবর্তন করে দিতে পাড়ে ।

এর আগেও বিভিন্ন ভাইকিং কবরে ইসলামিক সভ্যতার নিদর্শন পাওয়া গেলেও  আগে ধারনা করা হত সেগুলো হয়ত লুট কিংবা ব্যাবসা বানিজ্যের মাধ্যমে ভাইকিং দের কাছে এসেছে  ।

 

এক হাজার বৎসর আগের  সিল্ক কাপড়ের একটি ব্যান্ড যা ভাইকিংরা মৃত ব্যাক্তিকে দাফন করার সময় ব্যাবহার করত – এর লেখনিতেই পাওয়া গিয়েছে আল্লাহ লেখা আরবি শব্দ

 

ভাইকিং দের নৌকায়  কবর দেবার  রীতিতে এই সিল্ক ব্যান্ডটি খুবই গুরত্বপুরন ।

১০ম শতাব্দীতেই সবচেয়ে আগ্রাসী এবং সমুদ্র বিজয়ী  বর্তমান নরওয়ে , ও সুইডেন এর অধিবাসীরা ছিল তৎকালীন ইউরোপ এর সবচেয়ে  ক্ষমতাবান জাতি ।  ধারনা করা হয় এই ভাইকিংরাই প্রথম অ্যামেরিকা আবিস্কার করেছিল ।

বিভিন্ন দেবতার পূজারি এই ভাইকিং জনগোষ্ঠীর মাঝে যে সেইন নবম দশম শতকেই ইসলামের আলো প্রবেশ করেছিল তা আধুনিক বিশ্বের কাছে অজানাই ছিল ।

হলিউড মুভি  ” থর ” এর যে হাতুরি নিয়ে উড়তে পাড়া সুপার হিরোর আবির্ভাব তা এসেছে ভাইকিং দের নরস মিথলজি থেকে এবং তারা আগে থর , লোকি কে দেবতা মানত এবং এদের পুজা করত ।

 

কিন্তু ২০১৭ এই গবেষণায়  দেখা যায় । ভাইকিংরা খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহন করার আগেই ইসলাম ধর্মের   সংস্পরশে এসেছিল ।  গবেষকদের মতে ইসলাম ধর্মের মৃত্যুর পরবর্তী জীবনের ব্যাখ্যা এবং  ভাইকিংদের এর পরকাল এর ব্যাখ্যার সাথে  অনেকটাই মিলে যাওয়ায় । ভাইকিংরা হয়ত ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছিল ।

উপ্সলা ইউনিভার্সিটির প্রত্নতত্ব বিভাগের গবেষক  আনিকা লারসন  বলেন ” ভাইকিংদের সময়ে তাদেরে পোশাকে যে সকল লেখা থাকত  তা মুলত তাদের মৃত্যু পরবর্তী ভালহালা বা ভাল্কেরিয়ার বর্ণনা করত , কিন্তু সেই পোশাকে আল্লাহ লেখা ভাইকিংদের ইসলাম কে আংশিক বা সম্পূর্ণ গ্রহন করার  ইঙ্গিত দেয় ”

বাগদাদ এর ইসলামিক প্রাচীন ইতিহাসবিদ দের লেখনীতে ভাইকিংদের যোদ্ধা ব্যাবসায়ি বলা হয়েছে এবং তাদের প্রশংসা করা হয়েছিল । কিন্তু এই ভাইকিংরাই ছিল ফ্রান্স ও ব্রিটেন এর কাছে এক আতঙ্কের নাম ।

 

আল্লাহ নাম অংকিত এই আঙটি টি  পাওয়া গিয়েছিল এক অন্য এক ভাইকিং কবরে ।

 

 

এখন অনেকেই বলছেন বর্তমান ভাইকিংদের বংশধর  অনেকেই মুসলিম বিরোধী রাজনৈতিক অবস্থান নিলেও এই আবিস্কার এখন প্রাচীন  ভাইকিংদের ইসলামের কাছে আসার কথাই তুলে ধরে , যা সুইডেন  ও নরওয়ের  অনেক কট্টরপন্থী জাতীয়তাবাদীদের ইসলাম এবং মুসলিমদের সম্পর্কে ধারনা পরিবর্তন করবে  ।

ভাইকিংদের সম্পর্কে জানতে দেখতে পাড়েন হিস্টরি চ্যানেলের ইতিহাসভিত্তিক সিরিয়াল ” Vikings ” সেখানে  ভাইকিং সমুদ্র অভিযান ও  ফ্রান্স ,  ব্রিটেন আক্রমণ এবং পরবর্তীতে ভাইকিংদের সাথে মুসলিমদের সাক্ষাত এর ধারনা পাওয়া যাবে ।

 

ভাইকিং কারা ? 

 

আপনার মতামত বা জিজ্ঞাসা ?

%%footer%%